Breaking News
Home >> Breaking News >> বিদ্যালয়ে আসতে দেরি, গেটে ঢুকতে বাধা প্রধান শিক্ষকের

বিদ্যালয়ে আসতে দেরি, গেটে ঢুকতে বাধা প্রধান শিক্ষকের

কার্তিক গুহ,পশ্চিম মেদিনীপুর: বিদ্যালয়ে আসার সময়ে অতিক্রম করলে দিতে হবে তার মাশুল।পরিষ্কার জানিয়ে দিল বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।সেই মতই বুধবার বেলদা গঙ্গাধার অ্যাক্যাডেমি তে ঢুকতে দেয়া হলো না বেশ কয়েকজন ছাত্র ছাত্রী কে॥কারণ তারা বিদ্যালয় প্রার্থনার আগে উপস্থিত হতে পারে নি।এদিকে অবশ্য বিদ্যালয় এর ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের মতে-প্রথমে ছাত্র-ছাত্রীদের শিখতে হবে নিয়ম-শৃঙ্খলা আর নিয়ম ভেঙ্গে বিদ্যালয় দেরি করে আসা যাবেনা।একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হওয়ার প্রথম দিন থেকেই সময় মত বিদ্যালয়ে আসার কথা বলা হচ্ছিল।

তবে ছাত্রছাত্রীরা নিয়মিত সময় করে স্কুল আসতো না।তাই কড়া ভাবেই গেট লাগিয়ে দিয়ে ছাত্র ছাত্রীদের ঢুকতে দেওয়া যাবে না।”ঘড়িতে তখন ১০.৫০।বিদ্যালয়ের গেটে তালা ঝুলিয়ে দিল বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।ঢুকতে দেওয়া হবে না এমনই কড়া বার্তা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অলক ভট্টাচার্যের।বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনির ছাত্র সৌভিক দাস জানায়-“বিদ্যালয় প্রার্থনার পরেও ঢুকতে দেওয়া হতো।কিন্তু আজ সামান্য দেরি হতে বিদ্যালয় প্রার্থনার পর ঢুকতে দেওয়া হয়নি।যদিও বিদ্যালয় এর সময় এর পরের আসা হয়েছে তবুও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমাদের একটি ক্লাস সাসপেন্ড করে পরের ক্লাস থেকে ঢুকতে দেওয়ার অনুমতি দিক।”এদিকে দায়িত্বে থাকা প্রধান শিক্ষক অলক ভট্টাচার্যের স্পষ্ট বক্তব্য-“আমরা অনেকদিন আমরা ছাত্রছাত্রীদের ছেড়ে দিয়েছি তবে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাথে মিটিং করার পর আমরা সিদ্ধান্তে আসি যে প্রার্থনার পর কোনরূপ ছাত্রছাত্রীদের বিদ্যালয়ের ঢুকতে দেওয়া হবে না।দেরি করে এলে তাদের বাড়ি ফিরে যেতে হবে।”বিদ্যালয়ের দ্বাদশ শ্রেনির ছাত্র বিশ্বজিৎ সেন জানায়-“টিউশন শেষ করে বিদ্যালয়ে আসতে দেরি হয়েছে।অন্যান্য দিন বিদ্যালয়ে ঢুকতে দেওয়া হত আজ হয়নি।আমার একদিন দেরি হয়েছে।আমাদের ক্লাস করতে দেওয়া হোক।”কড়া আদেশ মত বিদ্যালয়ের গেট খোলা হল না,ছাত্রছাত্রীরা ঠায় বসে রইল বিদ্যালয়ের মেন গেটের কাছে।

এছাড়াও চেক করুন

অস্থায়ী রুপে সরকারী স্বীকৃতি দেওয়ার দাবীতে সরব পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল অস্থায়ী শিক্ষাকর্মী ও শিক্ষক সমিতি

মনিরুল হক, কোচবিহারঃ অস্থায়ী রুপে সরকারী স্বীকৃতি দেওয়ার দাবীতে সরব হল পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল অস্থায়ী শিক্ষাকর্মী …

Leave a Reply

Your email address will not be published.