Breaking News
Home >> Breaking News >> নিজে একজন বিড়ি শ্রমিক হয়েও বস্ত্র দান করলেন দুঃস্থদের

নিজে একজন বিড়ি শ্রমিক হয়েও বস্ত্র দান করলেন দুঃস্থদের

পার্থ দাস বৈরাগ্য, স্টিং নিউজ করেসপন্ডেন্ট, তেহট্ট নদিয়া:বিড়ি বেঁধে সংসার চালিয়ে তার থেকে টাকা বাঁচিয়ে পুজোর আগে দুঃস্থ মানুষদের হাতে নতুন কাপড় তুলে দিলেন এক বিড়ি শ্রমিক।
রবিবার তেহট্ট থানার  বেতাই কলোনীর বিড়ি শ্রমিক হরেন মণ্ডল এলাকার প্রায় ৪০জন দুঃস্থ মানুষের হাতে এদিন নতুন কাপড় তুলে দেন।

এই মহতি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষারত্ন প্রাপ্ত শিক্ষক অখিল সরকার,বেতাই -২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সঞ্জিত পোদ্দার, বেতাই ডাক্তার বি আর আম্বেদকর কলেজের প্রাক্তন অধক্ষ্য মঙ্গল ময় মৌলিক সহ অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। ১৯৭১ সালে দেশ ভাগের সময় হরেন বাবু তাঁর বাবা হরিপদ মণ্ডলের হাত ধরে এপারে চলে আসেন। এপারে বেতাই এলাকার থাকতে শুরু করেন। এর ওর
বাড়িতে থেকে ১৯৮০ সালে কলোনীতে একটি সরকারের দেওয়া জায়গায় কাঁচা বাড়ি করে
থাকতে শুরু করেন। তখন থেকে সহায় সম্বল হীন হরেন বাবু বিড়ি বেঁধে সংসার চালাতেন। হরেনবাবুর দুই ছেলে ও এক মেয়ে। বড় ছেলে পল্লব এম এ তে পড়েন, মেয়ে আশা বিএ প্রথম বর্ষের ছাত্রী ও ছোট ছেলে দেবাশিস একাদশ শ্রেণীর ছাত্র। হরেনবাবু এক হাজার  বিড়ি বেঁধে পান ১০০ টাকা। সারাদিনে দুই থেকে আড়াই হাজার বিড়ি তিনি বাঁধেন। সেই টাকায় তিনজনের লেখা পড়ার খরচ  , সংসার
খরচ চালিয়ে তাঁর এই উদ্যোগকে একবাক্যে প্রশংসায় ভরিয়ে দিচ্ছে এলাকার মানুষজন। হরেন বাবু বলেন, দেশভাগের পর আমরা যখন এদেশে চলে আসি তারপর থেকে চরম অভাব অনটনের মধ্যে দিয়ে আমাদের সংসার চলেছে। কোন পুজোতে আমরা নতুন জামা পায় নি। সে যে কি কষ্ট তা আমরা অনুভব করেছি। তাই আমি আমার পরিবারের সাথে আলোচনা করে এই দুঃস্থ মানুষদের পুজোর আগে নতুন কাপড় দিয়ে তাদের মুখে একটু হাসিতো ফোটাতে পারলাম। এই বিষয়ে হরেন বাবুর স্ত্রী শর্মিলা মণ্ডল বলেন, খুব কষ্ট করে আমাদের সংসার চলে। এমন সময় গিয়েছে আমাদের তিন ছেলে মেয়েকে পুজোয় নতুন জামা দিতে পারে নি। তাই উনি যখন বললেন আমাদের সংসার চালানোর টাকা বাঁচিয়ে এলাকার দুঃস্থদের নতুন কাপড় দিলে কেমন হয়। সেই শুনে আমি বা আমার ছেলে মেয়ে কেউ নিসেধ করিনি। আমরা সবাই এই কথায় রাজি হয়ে গিয়েছি। রবিবার আমরা সেই কাজটি করতে পেরে খুব আনন্দ ভোগ করছি।

এছাড়াও চেক করুন

কলকাতার এনআরএস হাসপাতালে জুনিয়ার চিকিৎসকদের কর্মবিরতি না মিটতেই, চিকিৎসা কর্মীকে মারধরের অভিযোগ দক্ষিন দিনাজপুর জেলা হাসপাতালে

শিবশংকর চ্যাটার্জ্জী, স্টিং নিউজ, দক্ষিন দিনাজপুর: কলকাতার এনআরএস হাসপাতালে জুনিয়ার চিকিৎসকদের কর্মবিরতি না মিটতেই চিকিৎসা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.