Breaking News
Home >> Breaking News >> সুকুমার রায় মানে তো আস্ত একখান উপাখ্যান

সুকুমার রায় মানে তো আস্ত একখান উপাখ্যান

কল্যাণ অধিকারী: ‘আর যেখানে যাও না রে ভাই সপ্তসাগর পার, কাতুকুতু বুড়োর কাছে যেওনা খবরদার’ !
কবিতাটি বাঙালির ছোটবেলায় অসাধারণ মজা দিয়েছে। যদিও স্বপ্নটা থাকতো ভর দুপুরে ফুটবল মাঠে বল পেটাবার। নয়তো ‘আয় ক্ষ্যাপা-মন ঘুচিয়ে বাঁধন জাগিয়ে নাচন তাধিন ধিন’।

সুকুমার রায় মানে তো আস্ত একখান উপাখ্যান। পছন্দের পাত্র যদি গঙ্গারাম হয়, তবে প্যাঁচা কয় প্যাঁচানি। তখনি শুরু গাছ পালা চমকে, সুরে সুরে কত প্যাঁচ গিটকিরি ক্যাঁচ ক্যাঁচ! যত ভয় যত দুখ। বাকিটা আর কি, একলা পেলে জোর ক’রে ভাই গল্প শোনায় প’ড়ে।

সেই সময়ের ছড়াকার মহাশয়ের ভয়ানক স্রোতে আবদ্ধ হয়নি এমন জ্যোতিশ্বর কেউ রয়েছেন! থাকলে হয়তোবা কেষ্টদাসের পিসি! লেখায় কি বাকি ছিল বলতে পারবেন! বাবুরাম সাপুড়ে, কোথা যাস্ বাপুরে? থেকে, প্যালারাম বিশ্বাস? ফোঁস্‌ফোঁস্ অত জোরে ফেলো নাকো নিশ্বাস! এটাই তো ছিল আস্ত মজা। তবে, এখানেই শেষ নয়। সেই যে, ডাক্তারি কেরামৎ—কাটা ছেঁড়া ভাঙা চেরা চটপট মেরামৎ। আজও সময়ে অসময়ে গুনগুন করে ওঠে ছড়া গুলো।

নেড়া বেলতলায় যায় ক’বার? ‘লেখা আছে পুঁথির পাতে, নেড়া যায় বেলতলাতে, নাহি কোনো সন্দ তাতে— কিন্তু প্রশ্ন ‘কবার যায়?’ এ কথাটা এদ্দিনেও মাঝেমধ্যে শোনা যায়। কিন্তু সেই যে হুঁকো মুখো হ্যাংলা বাড়ী তার বাংলা, মুখে তার হাসি নাই দেখেছ? কি মিষ্টি সে সব কথা গুলো। আজ বৃষ্টি ভেজা হালকা শীতের রাতে বড্ড মিস করছি সেই ছোটবেলার সুকুমার রায় কে।

লেখক, ছড়াকার, শিশুসাহিত্যিক, রম্যরচনাকার, প্রাবন্ধিক, নাট্যকার ও সম্পাদক সুকুমার রায় মহাশয়ের শুভ জন্মদিনে আন্তরিক শ্রদ্ধার্ঘ।

©-কল্যাণ অধিকারী

এছাড়াও চেক করুন

পশ্চিম মেদিনীপুরের লোহাটিকরীতে উল্টে গেল একটি সরকারি বাস

কা‌র্তিক গুহ, ‌স্টিং নিউজ, পশ্চিম মেদিনীপুর :- পশ্চিম মেদিনীপুরের গুড়গুড়িপাল থানার অন্তর্গত লোহাটিকরীতে উল্টে গেল …

Leave a Reply

Your email address will not be published.