Breaking News
Home >> Breaking News >> দক্ষিনেশ্বর স্কাই ওয়াকের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

দক্ষিনেশ্বর স্কাই ওয়াকের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

সৈকত গাঙ্গুলী, ব্যারাকপুর: অবশেষে উদ্বোধন হল মুখ্যমন্ত্রীর হাত ধরে দক্ষিনেশ্বরের স্কাইওয়াক । স্কাইওয়াক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আজকের থেকে এই স্কাইওয়াকের নাম দেওয়া হল দক্ষিণেশ্বর রানি রাসমণি স্কাইওয়াক। দক্ষিণেশ্বরের সাথে রানি রাসমণির নামে যদি সংযোজন না থাকে তবে একটা ইতিহাস, একজন সাহসী মহিলার বীরগাথা সবটা কিন্তু অধরা থেকে যাবে।

মুখ্যমন্ত্রী স্কাইওয়াকের উদ্বোধনে এসে স্কাইওয়াকের কাজের শুরু দিকে বিরোধী দল গুলির বিরোধীতাকে কটাক্ষ করে দলগুলোকে জগাই মাধাই বলেন। তিনি বলেন হকারদের ভুল বোঝানো হয়। কিন্তু এই কাজটি সমাপ্ত হওয়ার পর একশো সাঁইত্রিশ জন দোকানদার নতুন দোকান পাবে। এতে এই দক্ষিণেশ্বরের সৌন্দর্যায়ন বাড়ল।
মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন দক্ষিণেশ্বর আমাদের গর্বের জায়গা, বেলুড় আমাদের গর্বের জায়গা। দক্ষিণেশ্বরের স্কাইওয়াক হয়েছে।

কালীঘাটের জন্য কালীঘাট মন্দির কমিটির সাথে কথা বলার জন্য পুরমন্ত্রীকে এই মঞ্চ থেকেই নির্দেশ দেন। তিনি জানান যে এরকম কাজ হলে একটা ডালা ওয়ালার দোকানও নষ্ট করা হবে না। হকারদের পুনর্বাসন দেওয়া হবে এছাড়াও তারাপীঠ ,সতীপীঠ, কঙ্কালীতলা, সহ ফুরফুরা শরিফের এই রকম আধুনিকীকরণ হবে ।
বিজেপির নাম না করে তিনি বলেন, যাঁরা ধর্ম ধর্ম করে তারা ধর্মের জন্য এক ইঞ্চিও কাজ করে না ।
এখানে কেউ কেউ হিন্দুধর্ম করবে আর কেউ হিন্দুধর্ম করবে না, আমরা সবাই বানের জলে ভেসে এসেছি। এরা হঠাৎ করে কোথায় থেকে উদয় হল, এরা আমাদেরকে হিন্দুত্ব শেখাচ্ছে।


শুধু গেরুয়া পড়লেই সাধু হয় না তার মনটাও সাধুর মতো হওয়া চাই। গেরুয়া রাস্তাতেও বিক্রি হয়। গেরুয়া সবাই পড়ে না, যাঁরা গেরুয়া পরে তাঁরা গেরুয়া মানে ত্যাগ। সব কিছু ছেড়ে দিয়ে সে এই জায়গাটায় গভীর মনোনিবেশ করেন। আর বিজেপির গেরুয়া গুলোকে দেখুন খায় দায় যা ইচ্ছা করে বেড়ায়। আরা ভাষণ দিয়ে বেড়ায়। ওটা হচ্ছে নকল গেরুয়া। আসল গেরুয়া হচ্ছে ভারত সেবাশ্রম আসল গেরুয়া হচ্ছে সাধু সন্তরা ।
মন্ত্রী হবে বিধায়ক হবে, ফুর্তি করে বেড়াবে। এ দিকে গেরুয়া পড়ে বেড়াবে, দুটো তো এক সাথে হয় না। একটা হচ্ছে সত্যিকারের গেরুয়া, সচ্চা গেরুয়া আর একটা হচ্ছে ঝুটা গেরুয়া । যেটা হচ্ছে পার্টি করার জন্য মিথ্যা কথা বলার জন্য।
বাংলার মেরুদণ্ডকে ভেঙে ফেলার সাহস কারুর নেই। বাংলা উঁচু করে চলে বাংলা গর্বের সাথে চলে কাজের সাথে চলে । দক্ষিণেশ্বরের স্কাইওয়াক সারা ভারতবর্ষের মধ্যে শুধু নয় সারা পৃথিবীর মধ্যে একটি নতুন দিগন্ত উন্মোচন করল। যেখানে যেখানে দরকার আছে এ রকম স্কাইওয়াক করা হবে ।
মেট্রো রেলের কাজ নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী বলেন যেটা দেড় বছরে হয় সেটা পনেরো বছরেও হলো না।

এছাড়াও চেক করুন

পূর্ব-বর্ধমানে সোশ্যাল মিড়িয়া গ্রুপদের নিয়ে সভা করলেন তৃণমূল প্রার্থী সুনীল মণ্ডল

গৌরনাথ চক্রবর্ত্তী,‌স্টিং নিউজ, কাটোয়া ঃ আগামী ২৯ এপ্রিল বর্ধমান পূর্ব লোকসভা ভোট।তারই প্রস্তুতি হিসাবে বর্ধমান …

Leave a Reply

Your email address will not be published.