Breaking News
Home >> Breaking News >> মহুল পত্রিকার এক দশক

মহুল পত্রিকার এক দশক

স্টিং নিউজ সার্ভিসঃ মহুল পত্রিকা দশ বছরে পা দিল। সেই উপলক্ষে পত্রিকার পক্ষ থেকে পাঁচবেড়িয়া সানরাইজ ক্লাবের সভাগৃহে ‘নিজের সঙ্গে দেখা’ নামে একটি মনোজ্ঞ কবিতা পাঠের আসর আয়োজন করেছিল ৯ডিসেম্বর রবিবার। এদিন প্রকাশিত হল মহুল পত্রিকার ”রাঢ় বাংলার কবি ও কবিতা” সংখ্যা।

মঞ্চ সাজানো হয়েছিল গাঁদাফুল, মঙ্গলঘট আর মাটির ঘোড়া দিয়ে। উপস্থিত সবার হাতে দেওয়া হয় একটি করে গাঁদাফুল। যা অনুষ্ঠানের পরিবেশে এনেছে রাঢ় বাংলার নিজস্ব সৌরভ।

লোকসংস্কৃতি ও আঞ্চলিক ইতিহাস নিয়ে দীর্ঘকাল চর্চা করছেন দেবাশিস ভট্টাচার্য। তাঁর হাতে মানপত্র, কাঁশার থালা ও রক্তকরবীর গুচ্ছ তুলে দিয়ে সম্মাননা জ্ঞাপন করা হয়। এভাবে সম্মাননা জ্ঞাপনেও পাওয়া গেল ভিন্নতার স্বাদ।

ধর্মমঙ্গল কাব্যের চর্চা আজ আর তেমন হয় না। অথচ রাঢ় অঞ্চলের সবচেয়ে প্রাচীন কাব্য হল ধর্মমঙ্গল কাব্য। এই প্রসঙ্গে ‘উপেক্ষিত ধর্মমঙ্গল কাব্য’ নিয়ে তথ্যনিষ্ঠ বক্তব্য রাখলেন বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক ও লোকসংস্কৃতি গবেষক উমাশংকর নিয়োগী।

দুই মেদিনীপুর জেলার প্রায় ষাট জন কবি কবিতা পাঠ করলেন অনুষ্ঠানে। অনান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কবি সুকান্ত সিংহ, তপনজ্যোতি মাজি, আশিস মিশ্র, বঙ্কিম দে, সুশান্ত সৎপতি, বঙ্কিম মাজি, গুরুপদ মুখোপাধ্যায় অঙ্কন মাইতি, সোমা প্রধান, কাজল চক্রবর্তী, রবীন্দ্র সিংহ রায় প্রমুখ। আবৃত্তি পরিবেশন করেন সৌরেন চট্টোপাধ্যায়। বাঁশিতে রবীন্দ্রসঙ্গীত পরিবেশন করেন দিলীপকুমার দোলই। জাগগান পরিবেশন করেন সুদীপ্ত চক্রবর্তী।

সম্পাদক কেশব মেট্যা জানালেন– মহুলের রাঢ় বাংলার কবি ও কবিতা সংখ্যায় যেমন তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে ধর্মমঙ্গলের কথা, রাঢ় অঞ্চলের কবিতার নানান দিক, তেমনই তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে বেশ কয়েকজন কবি ও কবিতার প্রসঙ্গ, যাঁরা আজও যথেষ্ট প্রাসঙ্গিক, অথচ সেভাবে আলোচনা হয় না। মুদ্রিত হয়েছে কবি ঋত্বিক ত্রিপাঠীর সাক্ষাৎকার।

এছাড়াও চেক করুন

পশ্চিম মেদিনীপুরের লোহাটিকরীতে উল্টে গেল একটি সরকারি বাস

কা‌র্তিক গুহ, ‌স্টিং নিউজ, পশ্চিম মেদিনীপুর :- পশ্চিম মেদিনীপুরের গুড়গুড়িপাল থানার অন্তর্গত লোহাটিকরীতে উল্টে গেল …

Leave a Reply

Your email address will not be published.