Breaking News
Home >> Breaking News >> দলেরই যুব সভাপতির থেকে তোলা চাওয়া এবং তাকে খুনের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল নৈহাটি পুরসভার কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে

দলেরই যুব সভাপতির থেকে তোলা চাওয়া এবং তাকে খুনের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল নৈহাটি পুরসভার কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে

সৈকত গাঙ্গুলী, ব্যারাকপুর: নৈহাটি থানার অন্তর্গত লালবাবা ঘাট এলাকার প্রোমোটার মনোজ দাসের থেকেই পাঁচ লক্ষ টাকা তোলা চেয়ে না পেয়ে তাকে খুনের হুমকি এবং দলবল নিয়ে মনোজ দাসের বাড়িতে হামলা ও খুন করতে যাওয়ার অভিযোগ উঠল নৈহাটি পৌরসভার আট নম্বর ওয়ার্ডের পৌরপিতা তথা নৈহাটি পৌরসভার পৌর পারিষদ (শিক্ষা বিভাগ) গণেশ দাসের বিরুদ্ধে।

গনেশ দাস ভাটপাড়ার বিধায়ক তথা পৌরপ্রধান অর্জুন সিং ঘনিষ্ঠ। অন্যদিকে মনোজ বাবুও তৃণমূলের যুব সভাপতি। মনোজবাবুর অভিযোগ তিনি একটি ইটভাটা নতুন নিয়েছেন। সেই ইটভাটা নেওয়ার পর থেকে তাকে ক্রমাগত টাকার জন্য চাপ দিতে শুরু করেন গণেশ দাস। প্রতিদিনই প্রায় তাকে হুমকি দেওয়া হতো টাকার জন্য।

এদিন গণেশ দাস তার কিছু সঙ্গী নিয়ে চড়াও হয় তার বাড়িতে বলে অভিযোগ মনোজবাবুর। তার আরও অভিযোগ তাকে প্রথমে মারধর করা হয় এবং পরে তাকে আগ্নেয়াস্ত্র দিয়েও ভয় দেখানো হয়। এরপর আশপাশের লোকজন ছুটে এসে দুষ্কৃতীদের ধরে ফেলে। এবং তারা আগ্নেয়াস্ত্রটি ফেলে দেয়। পরে পুলিশ সেই আগ্নেয়াস্ত্রটি খুঁজে বের করে। মনোজবাবুর জানান, তিনি পরিবার নিয়ে প্রচন্ডই আতঙ্কে রয়েছেন এবং নৈহাটি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অপর দিকে বিষয়টি নিয়ে কথা বলা হয় নৈহাটি পৌরসভার পৌরপ্রধান অশোক চট্টোপাধ্যায়ের সাথে। তিনি জানান, আমি যতটুকু জানি মনোজ দাস আমাদের যুব সভাপতি। মনোজ কিছু দিন আগে একটি ইটভাটা নেয় তিন নম্বর ওয়ার্ডে। সেখানে অবৈধভাবে মাটি তোলা হচ্ছে বলে বিএলআরও কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করে গণেশ দাস। বিএলআরও তার দল পাঠিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখে। কিন্তু তারপরও বারংবার গণেশ দাস তার লোকজন নিয়ে গিয়ে মনোজকে বিরক্ত করতে থাকে। তিন নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এই বিষয়টি না জানলেও, কি জন্য আট নম্বর ওয়ার্ড থেকে তিন নম্বর ওয়ার্ডে গণেশ গেল তাও আমার জানা নেই। কিন্তু গণেশের সাথে কিছু দিন আগে কিডনি পাচার চক্রের ধৃত বর্তমানে জামিনে মুক্ত মুন্না নামের এক দুষ্কৃতীও ছিল বলে আমি শুনেছি। গণেশ নিজের ওয়ার্ডে তো কোনও কাজই করতে দিচ্ছে না এবং তার সাথে কিছু সমস্যাও তৈরি করছে এমনই অভিযোগ করেন নৈহাটির পুরপ্রধান অশোক চট্টোপাধ্যায়।
ধৃত গনেশ দাস সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিদের জানান আমি এখন কিছু বলব না আমাকে হেনস্থা করা হয়েছে এবং আমি ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছি।

অভিযুক্ত গণেশ দাস সহ চার জনকে আটক করেছে পুলিশ। ধৃত গনেশ দাস সহ চারজনকে নৈহাটি থানায় রাখা হয়েছে আগামীকাল তাদের ব্যারাকপুর আদালতে তোলা হবে বলে পুলিশ সূত্রে খবর ।

এছাড়াও চেক করুন

পূর্ব-বর্ধমানে সোশ্যাল মিড়িয়া গ্রুপদের নিয়ে সভা করলেন তৃণমূল প্রার্থী সুনীল মণ্ডল

গৌরনাথ চক্রবর্ত্তী,‌স্টিং নিউজ, কাটোয়া ঃ আগামী ২৯ এপ্রিল বর্ধমান পূর্ব লোকসভা ভোট।তারই প্রস্তুতি হিসাবে বর্ধমান …

Leave a Reply

Your email address will not be published.