Breaking News
Home >> Breaking News >> বাংলার লোকশিল্প যাত্রাপালাকে বাঁচিয়ে রাখছেন নদীয়ার হাঁসপুকুরিয়া গ্রামের যাত্রাপ্রেমী মানুষেরা

বাংলার লোকশিল্প যাত্রাপালাকে বাঁচিয়ে রাখছেন নদীয়ার হাঁসপুকুরিয়া গ্রামের যাত্রাপ্রেমী মানুষেরা

নবেন্দু ভট্টাচার্য, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, নদীয়াঃ নদীয়ার হাঁসপুকুরিয়ায় পৌষকালী পূজা ও হাঁস পুকুড়িয়া উৎসব ২০১৮ এ ষষ্ঠ বর্ষে পদার্পণ করলো। ২৫ শে ডিসেম্বর থেকে শে ডিসেম্বর পর্যন্ত ৫ দিন ব্যাপী নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রতিযোগিতা মূলক অনুষ্ঠান হয়। এর মধ্যে গুণীজন ও কৃতী ছাত্র ছাত্রীদের সংবর্ধনা , ছয় কিলোমিটার রোড রেস, কবিগান, হাস্যকৌতুক , এছাড়া তাৎক্ষণিক বক্তৃতা, কুইজ, যোগব্যায়াম, হাড়িভাঙ্গা, শঙ্খধ্বনি, জিমন্যাস্টিক ,লোক সংগীত , নৃত্য প্রতিযোগিতা , ম্যাজিক ,পুরস্কার বিতরণী ও গ্রামে শিল্পীদের অভিনীত যাত্রাপালা ছিল বিশেষ আকর্ষণ।

শীতের মরশুমে জমজমাটি উৎসব আজ সমাপ্তি হবে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা মাধ্যমে । সবচেয়ে বড় আকর্ষণ “সংসার সিন্দুকে বিষাক্ত নাগ” বিখ্যাত পালাকার তাপস কুমার ও তার অসাধারণ রচনায় অভিনয় করলেন আর একজন বর্ষীয়ান অভিনেতা , ভগীরথ বিশ্বাসের অসাধারণ অভিনয় হাজার দর্শকের মন জয় করেন।১৯৭৩ সালে যাত্রা জগতে যার অভিষেক, আজ ৪৫ বছর পূর্ণ হল যাত্রা জগতে । “সৃজনী” নাট্যগোষ্ঠীর পরিচালিত এই যাত্রা পালা। বর্তমান বৈদ্যুতিক মাধ্যম এর যুগে টিভি সিরিয়াল মুখী মানুষ যাত্রা শুনতে যে পছন্দ করেন তা দেখা গেল, এইখানে সারা বছর ধরে গ্রামের মানুষ সারাদিন খাটুনির পর, হাঁস পুকুড়িয়া বাজারে একটি ছোট্ট ঘর ভাড়া নিয়ে চলে তাদের মহড়া।

এই যাত্রাকে ভালোবেসে বহু খরচ করে নেশার টানে চলে আসেন ।একমাত্র মনোরঞ্জক হিসাবে যাত্রা কে বেছে নেন। আজকাল আগের মত শীতের মৌসুমে যাত্রাপালা আয়োজন গ্রাম বাংলার দেখাই যায় না বললে চলে। পরিচালক ও অভিনেতা তাদের আক্ষেপ তাদের শিল্পের কোন প্রচার মাধ্যমে আসে না । পান না কোন সাহায্য। তবুও তারা গ্রাম বাংলার এই ঐতিহ্যকে এই লোক শিল্প যাতে হারিয়ে না যায়, সেদিকে যে কোনো মূল্যে একে তারা বাঁচিয়ে রাখতে চান। আর রয়েছে দর্শকদের অকুণ্ঠ ভালোবাসা।

এছাড়াও চেক করুন

মাধ্যমিকে প্রথম দশে কারা কারা স্থান পেল একনজরে দেখে নিন

2019 মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করলেন পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়। পরীক্ষা শেষের 88 …

Leave a Reply

Your email address will not be published.