Breaking News
Home >> Breaking News >> স্টিং নিউজের সাংবাদিককে হেনস্তা নাকাশীপাড়া ব্লক তৃণমূল সভাপতির, চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিল স্টিং নিউজ

স্টিং নিউজের সাংবাদিককে হেনস্তা নাকাশীপাড়া ব্লক তৃণমূল সভাপতির, চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিল স্টিং নিউজ

স্টিং নিউজ সার্ভিসঃ রবিবার বিকেলবেলায় জম্মু কাশ্মীরে শহিদ জওয়ানদের শ্রদ্ধা জানাতে মিছিল বার করে নাকাশীপাড়া তৃণমূল কংগ্রেস। ওই সময়ে সংবাদ সংগ্রহের জন্য উপস্থিত ছিলেন স্টিং নিউজের সাংবাদিক নবেন্দু ভট্টাচার্য। নাকাশিপাড়া পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ব্রজেশ্বর রায়ের একটি ভিডিও ইন্টারভিউ নিচ্ছিলেন আমাদের সাংবাদিক।

সেই সময় হঠাৎ মস্তানের ভঙ্গিতে আমাদের সাংবাদিককে বলেন, এই তোর এই সব বন্ধ কর, এসব একদম দেখাবি না, আমাদের খবর করতে আসবিনা। আমাদের যেখানে খবর করার সেখানে জানিয়ে দিয়েছি। তুই এসব নিয়ে আর আসবি না, বলে ক্যামেরা বন্ধ করতে বলেন। অপমানিত হয়ে আমাদের সাংবাদিক নবেন্দু ভট্টাচার্য ওই স্থান থেকে চলে আসেন।

কিন্তু তৃণমূল কর্মীদের আমন্ত্রণে খবর সংগ্রহ করতে গিয়েছিলেন আমাদের সাংবাদিক। শুধু এই নয় আমাদের চ্যানেলে নামে বলা হয়, কোথাকার কি, কি হয়, কোথায় দেখায়! যথারীতি অপমান করে স্টিং নিউজকে। এই মুহূর্তে পশ্চিমবঙ্গের অন্যতম সেরা অনলাইন ও প্রিন্ট গণমাধ্যম স্টিং নিউজ সম্পর্কে জানেন না নাকাশিপাড়া তৃণমূল কংগ্রেসের ব্লক সভাপতি অশোক দত্ত। চ্যানেলের লোগো ও বুম দেখেও তিনি বুঝতে পারেন না কোন চ্যানেল বা নিউজ পোর্টাল। তাই অনেকেই তার শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন।

প্রশ্ন উঠছে কিভাবে সংবাদমাধ্যমের কর্মীদের তিনি এভাবে অপমান করতে পারেন। এবারই প্রথম নয়, এর আগেও বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের কর্মীদের বিভিন্নভাবে হেনস্তা ও অপমান করেছেন অশোক দত্ত। একজন সাংবাদিকের সঙ্গে তিনি যদি এমন ব্যবহার করেন, তাহলে সহজেই অনুমান করা যায় নাকাশিপাড়ার সাধারণ মানুষের সঙ্গে তিনি কি ব্যবহার করেন!

সাংবাদিকদের তিনি বাজে ভাষায় কথা বলেন। তার এই ঔদ্ধ্যত্তের জন্যই নাকি নাকাশিপাড়া তৃণমূল কংগ্রেসের ভরাডুবি হয়েছে গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে এবং সেখানে তৃণমূলের থেকে বিজেপি অনেক ভালো ফল করেছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের ব্যক্তিত্বরা। ফল খারাপের জন্য তাকে কথা শুনতে হয়েছে নদিয়ার অবজারভার অনুব্রত মন্ডলের কাছে।

শুধু আমাদের সাংবাদিককে অপমানই নয়, এদিন নাকাশিপাড়া পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ব্রজেশ্বর রায়ের ইন্টারভিউ নিচ্ছিলেন আমাদের সাংবাদিক। সেই ইন্টারভিউ চলকালিন তিনি তা ভেস্তে দিয়ে পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ব্রজেশ্বর রায়কেও এক প্রকার অপমান করেন বলা চলে।

তাই প্রশ্ন উঠছে নাকাশিপাড়া তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরে গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব নিয়ে। অশোক দত্ত তার পছন্দের লোককে বসাতে চেয়েছিলেন পঞ্চায়েত সমিতি সভাপতির আসনে। কিন্তু বর্ষিয়ান নেতা ব্রজেশ্বর রায় এই আসনে বসায় তিনি মেনে নিতে পারেননি। তাই তিনি চান না ব্রজেশ্বর রায় প্রচারের আলোকে আসুক।

নাকাশিপাড়ার বিধায়ক কল্লোল খাঁ ও পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ব্রজেশ্বর রায় স্টিং নিউজ সহ বিভিন্ন সংবাদে বারবার প্রচার মাধ্যমে আসায় রাগ অশোক দত্তের। তার ভাবটা এমন- ব্রজেশ্বর রায়ের ইন্টারভিউ কেন? তার ইন্টারভিউ নিতে হতো। কেননা তিনিই নাকাশিপাড়া ব্লকের শেষ কথা। তিনি নিজেকে এমএলএর থেকেও বেশী কিছু ভাবেন।

তিনি চান, নাকাশিপাড়ার তৃণমূলের কোন খবরে শুধুমাত্র তিনিই প্রচারের আলোয় আসবেন, অন্য কোন নেতা নয়।

পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির সাথে সাংবাদিকরা বেশি কথা বললেই ক্ষেপে যান তিনি। এ থেকে প্রমাণিত হয় নাকাশীপড়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব প্রকট।

এর আগেও জনগণের মুখে শোনা যায়, অশোক দত্তের ছেলের চাকরি নিয়ে বিধায়ক কল্লোল খার সাথে মনোমালিন্য হয়। নাকাশিপাড়া অনেকে মনে করছেন সম্প্রতি দল থেকে নদিয়া জেলা পরিষদের কোমেন্টর নির্বাচিত হয়েছেন অশোক দত্ত। আর তারপর থেকেই তার মাথা ঘুরে গেছে, মাটিতে পা দাঁড়াচ্ছে না তার, বলে দলের একাংশের দাবি।

তার এই উদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ ও মানুষের সাথে খারাপ ব্যবহার তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে এবং নাকাশিপাড়া তৃণমূলকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, নাকাশিপাড়া তৃণমূলের কফিনে শেষ পেরেকটি বর্তমান ব্লক সভাপতি অশোক দত্তই মারবেন।

বিশেষ করে গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের পর এই কেন্দ্রে বিজেপির যে উত্থান সেই উত্থানে খোদ বেথুয়াডহরীর বুকে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা শঙ্কিত। আর নাকাশিপাড়া ব্লকে তৃণমূলের ভরাডুবি হয়েছে, অশোক দত্তের কারণেই, দাবি তৃণমূলের একাংশের।

স্টিং নিউজ এর পক্ষ থেকে অশোক বাবুকে জানাতে চাই, আপনি নিজে অনলাইন প্রযুক্তির ব্যবহার করেন না বলে এ দুনিয়ার আর কেউ করে না, তেমনটা নয়।

এই মুহূর্তে বাংলায় অনলাইন মিডিয়ায় সব থেকে বেশি জনপ্রিয় স্টিং নিউজ। পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যেক প্রান্তে প্রান্তে ছড়িয়ে পড়েছে স্টিং নিউজ। ২০১৩ সালে স্টিং নিউজের অনলাইনের পথ চলা শুরু। শুরু হয় www.stingnewz.com। ৮০ হাজারেরও উপর ইউটিউব সাবস্ক্রাইবার, ৫০ হাজারেরও বেশি ফেসবুক ফলোয়ার। ‘ডেলি হান্ট’ ও ‘টাইমস অফ ইন্ডিয়া গ্রুপের ‘নিউজ পয়েন্ট’ -এর সাথে দীর্ঘদিন যুক্ত। সেকেন্ডের মধ্যে আমরা পৌঁছে যায় লক্ষ লক্ষ মানুষের স্মার্ট ফোনে।

ভারতবর্ষ ছাড়াও সারা বিশ্বের ১০০ টিরও বেশি দেশের বাঙালিরা স্টিং নিউজ ফলো করেন। এর সাথে সাথে রয়েছে নিজস্ব সংবাদপত্র। ২০০৮ সাল থেকে সংবাদপত্রের পথ চলা শুরু।

তাই আমরা এক প্রকার চ্যালেঞ্জ করে অশোক দত্তকে জানাতে চাই, আমরা দেখিয়ে দেব সত্য খবর পরিবেশনে স্টিং নিউজ কি করতে পারে।

মানুষের জন্য কাজ করি আমরা, সত্যের জন্য লড়াই করি, সত্য ঘটনায মানুষের সামনে তুলে ধরি। আর তার বিচার করেন সাধারন মানুষ।

আমরা জনগণের হাতের মুঠোয় তুলে দিই তাদের শক্তি, তাদের চিন্তা ভাবনার দিক। আগামী দিনে তারাই বিচার করবে তারাই জবাব দেবে আপনাদের এই ঔদ্ধ্যত্ত ও অহংকারের।

দেখুন তার ঔদ্ধ্যত্তের ভিডিওঃ

এছাড়াও চেক করুন

জঙ্গল মহলে ফের তৃণমূলে ভাঙন ধরালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ

স্টিং নিউজ সার্ভিস, ঝাড়গ্রাম:- বেলপাহাড়ির পর নয়াগ্রামে বিজেপিতে যোগ দিলেন কয়েকশো তৃণমূল ও সিপিএম কর্মী …

Leave a Reply

Your email address will not be published.