Breaking News
Home >> Breaking News >> শিরদাঁড়ায় শীতল স্রোত বইছে তবুও আঙুলে নীল দাগ

শিরদাঁড়ায় শীতল স্রোত বইছে তবুও আঙুলে নীল দাগ

কল্যাণ অধিকারী, স্টিং নিউজ : শিয়রে ভোট। সংসদে প্রবেশের জন্য দেশ থেকে ৫৪৩ জন সাংসদ-এর নতুনভাবে সদস্য হবার ছাড়পত্র মিলবে। কত বিজ্ঞ, প্রাঞ্জল, জাতীয়তাবাদী, সভ্য চেহারার মানুষ উঠে আসবেন। যাদের হাত ধরে পাঁচ বছরের জন্য বলিষ্ঠ হবে দেশের সংসদ।

৫৪৩ জন সাংসদের মধ্যে কতজন আছেন যারা দেশের জন্য হন্যে হয়ে লড়াই চালাবেন! বৃহৎ দেশে উন্নয়নের মহাসড়কে কাঁচ তোলা গাড়িতে সফর করবেন। দু’পাশে মস্ত ফ্লাটের সীমানা সরিয়ে সারিসারি টালির ছাউনি ঘর। কাশির সঙ্গে এক দলা চটচটে শ্লেষা বেরিয়ে আসা সঙ্গে থরথরিয়ে কাঁপতে থাকা মানুষদের কথা আদৌ মনে আসবে ! সেলাই করা জামা আর চোখে নীলাভ স্বপ্ন নিয়ে কলেজে যাওয়া মেয়েটি ইচ্ছের বিরুদ্ধে পৌঁছে যায় বেশ্যালয়ে। ক’জন পারবে বেশ্যালয় থেকে তুলে এনে সুখের ঠিকানা খুঁজে দিতে।

পাথরের বাথরুমে একরত্তি মেয়ের ফ্রক তুলে চশমা পড়া পৌঢ় জাঙ্গিয়া খোলার সময় হাতেনাতে ধরা পড়তেই আকুতি ‘ইয়ে তো মেরা মা’। তাহলে ইজারা নিয়েছে ওই ছোট্ট ‘মা’ এর যোনিতে বৃদ্ধ পুরুষাঙ্গ বলপূর্বক ঢুকিয়ে দেবার ! এই দেশের ইট ভাটার ছবি উপগ্রহ থেকে তোলা হয়। কিন্তু কাছে গিয়ে ওদের সন্তানদের মুখে অন্ন বস্ত্র তুলে দেওয়া লোকের অভাব। তবুও ওরা লড়াই জিইয়ে রাখে। শিরদাঁড়ায় শীতল স্রোত বইয়ে দেওয়া হচ্ছে জেনেও আঙুলে নীল দাগ টানে।

অল্পবয়সী মেয়ে বিমান চালক বা সেবিকা হলে, অথবা মহাকাশে পাড়ি জমালে স্যালুট অভিনন্দন-এর বন্যা বইয়ে দিই। রূপোলী জগত থেকে কম বয়সে ভোটে দাঁড়ালে হাজারো প্রশ্ন ভেসে বেড়ায়। হতে পারে ওই রূপোলী জগতের মেয়েটি কলেজে কোন বান্ধবীর ঋতুস্রাব হতে দেখে দোকানে গিয়ে প্যাড কিনে এনে দিয়েছে। চোখের সামনে শিশুর সাথে নষ্টামি করতে দেখে ক্যামেরার সামনে ওই পৌঢ়’র পুরুষাঙ্গে লাথিটা মেরে চিরকালের জন্য পঙ্গু করে দিতেও পিছপা হবে না। তবুও ওঁদের প্রশ্ন রক্তকরবী ফোঁটা এলাকায় ৫বছরে কাজের কাজ করবে তো !

চিনা হুমকি, পাকিস্তানে বড় হওয়া জঙ্গিদের এ দেশে গোপনে আক্রমণ ঠেকিয়ে আমাদের দেশ শক্তি ও শৌর্যে বিশ্বকে টপকাবে এটা আমাদের সকলের স্বপ্ন। পাশাপাশি সংসদে কঠিন বিল এনে ধর্ষণের মতো মারণ ব্যাধি দূর করবে, কৃষক তার ফসলের ন্যায্য দাম পাবে। সুজলা সুফলায় ভরে উঠবে সর্বত্র। সাদা স্ক্রিনে রঙিন সিনেমায় কয়েকঘন্টা মজে থাকবে দেশ ও দুনিয়া। টাকা ব্যয় করে বিজ্ঞাপনহীন সিরিয়াল দেখবে মা-কাকিমা। ভোটের কথা বলতে গ্রামের অলিতে গলিতে নেমে আসবে টলিউড অভিনেত্রী দ্বয়।

তারপর!
তার পর ভিড় ঠেলে কোনোক্রমে পৌঁছে একটা সেলফি তুলে জেঠিমার মুখে তখন তৃপ্ত হাসি। গুনগুণ করছে মন…
না রে না,
আর তো পারে না,
মন আমার নাস্তানাবুদ এক জনেরই দায়।

তবুও প্রশ্ন থাকে। থাকবেও আগামীতেও ! তবুও মনে রাখবেন গণতন্ত্র প্রদান আমাদের সকলের অধিকার।

এছাড়াও চেক করুন

মাধ্যমিকে প্রথম দশে কারা কারা স্থান পেল একনজরে দেখে নিন

2019 মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করলেন পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়। পরীক্ষা শেষের 88 …

Leave a Reply

Your email address will not be published.