Breaking News
Home >> Breaking News >> যুব’র পার্টি অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ মাদার তৃণমূলের বিরুদ্ধে

যুব’র পার্টি অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ মাদার তৃণমূলের বিরুদ্ধে

মনিরুল হক, কোচবিহার: নিশীথ প্রামাণিক অনুমাগীদের পার্টি অফিস ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের মাদার গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে কোচবিহার ১নং ব্লকের ৪নং বাজার এলাকায়। নিশীথ অনুগামীদের দাবী, সোমবার ১টা নাগাদ পানিশালা অঞ্চলের তৃণমূল কংগ্রেস আশ্রিত কিছু দুষ্কৃতী ৪নং বাজার পার্টি অফিসের ভিতরে ঢুকে অভিষেক বন্ধোপাধ্যায়ের ছবি ও বিভিন্ন ফ্লেক্স ছিঁড়ে ফেলে এবং চেয়ার, টেবিল, ফ্যান ভেঙ্গে দেয় বলে অভিযোগ। যদিও ওই অভিযোগ অস্বীকার করে ইয়ৃন্মুল কংগ্রেস।

যুব নেতা আশরাফ আলি বলেন, “আমরা তৃণমূল যুব কংগ্রেস করে। আমাদের নেতা নিশীথ প্রামাণিক। তাকে কেউ ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে বহিস্কার করেন। তারপর থেকে সাংসদের অনুগামী ও মাদার তৃণমূল কংগ্রেসের আশ্রিত কিছু দুষ্কৃতী ওই পার্টি অফিসের যাবতীয় জিনিস ভেঙ্গে চুরমার করবে তা আমরা কোন ভাবে মেনে নিতে পারি না। পার্টি অফিস বানান হয়েছে দলের কর্মীদের বসার জন্য। সেটাই যদি ভেঙ্গে দেওয়া হয়, তাহলে এর থেকে নোংরা রাজনীতি আর কি হতে পারে।”

যদিও ওই অভিযোগ অস্বীকার করে কোচবিহার ১ নং ব্লকের তৃণমূল কংগ্রসের কার্যকারী সভাপতি আজিজুল হক বলেন, “এই ধরনের কোন ঘটনা এখন পর্যন্ত আমি শুনি নি। কে বা কারা কার পার্টি অফিস ভাঙচুর করেছে সেটা অজানা। তবে আমি এটুকু বলতে পারি যে ওই ঘটনার সাথে আমাদের তৃণমূলের কোন কর্মী যুক্ত নয়।”

প্রসঙ্গত, শুক্রবার রাতে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কোচবিহার জেলার সাধারন সম্পাদক নিশীথ প্রামাণিককে কোচবিহার জেলার সাংসদ তথা তৃণমূল যুব কংগ্রসের সভাপতি পার্থ প্রতিম রায় দলের যুব সংগঠনের পথ থেকে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে বহিষ্কার করেছে। এই ঘটনা কোচবিহার জেলার বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়তেই তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ ঘটেই চলেছে। তার জেরে এই ধরনের ঘটনা ঘটেই চলেছে বলে বিভিন্ন মহলের ধারনা।

এছাড়াও চেক করুন

মুখ্যমন্ত্রীর পাঠানো নতুন বছরের শুভেচ্ছা বার্তায় আপ্লুত দিনহাটার খুদে পড়ুয়ারা

মনিরুল হক, কোচবিহারঃ আচমকা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছ থেকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা বার্তার চিঠি পেয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.