Breaking News
Home >> Breaking News >> কোচবিহারে তৃণমূলের মাদার-যুব’র সংঘর্ষে স্কুলের সামনে চললো গুলি, আহত ২ শিক্ষক

কোচবিহারে তৃণমূলের মাদার-যুব’র সংঘর্ষে স্কুলের সামনে চললো গুলি, আহত ২ শিক্ষক

মনিরুল হক, স্টিং নিউজ করেসপনডেন্ট, কোচবিহার: তৃণমূল কংগ্রেসের দুই গোষ্ঠী মাদার যুবর মধ্যে সংঘর্ষে ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠল দিনহাটার- গিতালদহ এলাকা। আজ সকালে গিতালদহের হরিরহাট চাউলান্ধি এলাকার একটি নার্সারি স্কুল চত্বরে ওই ঘটনা ঘটেছে।

ওই ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে দু’জন গুলিবিদ্ধ অবস্থায় রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। গুলিবিদ্ধ দুজনের মধ্যে মনোয়ার হোসেন একটি প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক। অন্যজন মজনু হক ওই নার্সারি স্কুলের শিক্ষক বলে জানা গিয়েছে। তাঁদের প্রথমে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তির জন্য নিয়ে আসা হয়। এর মধ্যে মনোয়ার হোসেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক থাকায় তাঁকে কোচবিহারে রেফার করা হয়েছে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় দিনহাটার বিশাল পুলিশ বাহিনী। ঘটনার খবর পেয়ে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আক্রান্ত শিক্ষককে দেখতে ছুটে যায় উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ।

তৃণমূল কংগ্রেসের দিনহাটা ১নং ব্লক সভাপতি নুর আলম হোসেন বলেন, “আমাদের কয়েকজন কর্মী হাজিরা দেওয়ার জন্য দিনহাটা থানার দিকে আসছিল সেই সময় আবুয়াল আজাদের ছেলের নেতৃত্বে আমাদের কর্মীদের ওপর গুলি চালানো হয়। বাঁশ লোহার রড দিয়েও মারধোর করা হয়। এতে আমাদের দু’জন কর্মী আহত হয়েছে। এদের গুলি লেগেছে কিনা এখনও বোঝা যাচ্ছে না। তবে তাঁদের অবস্থা আশঙ্কাজনক”।

অন্যদিকে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের নেতা হিসেবে পরিচিত আবুয়াল আজাদ বলেন, “ এদিন প্রথমে মাদার গোষ্ঠীর লোকরা গিতালদহ ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েত দপ্তরের সামনে আমার ভাইপো আবু সায়েদ মিয়াঁকে ধরে মারধোর করে। খবর পেয়ে আমার ছেলে সেখানে যাওয়ার পথে মনোয়ার হোসেনের নেতৃতে গুলি চালানো হয়। পরে এলাকার বাসিন্দারা তাঁদের ধরে গণধোলাই দেয়”।

এছাড়াও চেক করুন

বিধায়কের নাম করে পুলিশকে চমকানোর অভিযোগে টিটাগড় পুলিশের জালে দুই যুবক

সৈকত গাঙ্গুলী, ব্যারাকপুর: হুগলি জেলার গোঘাটের বিধায়ক মানস মজুমদারের নাম করে পুলিশকে চমকানোর অভিযোগে টিটাগড় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.