Breaking News
Home >> Breaking News >> কোচবিহারের দেওয়ানহাটে তৃণমূলের মাদার-যুব’র গোষ্ঠী কোন্দল, পার্টি অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

কোচবিহারের দেওয়ানহাটে তৃণমূলের মাদার-যুব’র গোষ্ঠী কোন্দল, পার্টি অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

মনিরুক হক, স্টিং নিউজ, কোচবিহারঃ তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগে ফের উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে কোচবিহার ১ নম্বর ব্লকের দেওয়ানহাটে। রবিবার ওই ঘটনা নিয়ে কোচবিহার কোতোয়ালি থানায় ৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্তরা এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেসের যুব গোষ্ঠী বলে পরিচিত। যদিও ওই ঘটনাকে গোষ্ঠী কোন্দল মানতে নারাজ তৃণমূল কংগ্রেসের স্থানীয় নেতৃত্ব। তাঁদের দাবী, গতকাল সন্ধ্যায় একদল যুবক তাঁদের পার্টি অফিসে ঢুকে চেয়ার টেবিল ভাঙচুর করে। তাঁদের কয়েকজনকে মারধোরও করা হয়।

তৃণমূল কংগ্রেসের কোচবিহার ১ নম্বর ব্লকের কার্যকারী সভাপতি আজিজুল হক বলেন, “দলীয় কার্যালয়ে হামলা চালানোর ঘটনায় ৭ অভিযুক্তের নামে থানায় লিখিত ভাবে অভিযোগ করা হয়েছে। পুলিশ তাঁদের বিরুদ্ধে যাতে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়, তার জন্য পুলিশের সাথে কথা বলা হবে।” অন্যদিকে ওই ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত তৃণমূল যুব কংগ্রেসের অঞ্চল সভাপতি রাজীব হোসেন বলেন, “দেওয়ানহাটে আমরাই মাদার, আমরাই যুব। কাল সন্ধ্যায় ওই দলীয় কার্যালয়ে যাওয়া হয়েছিল। কিন্তু কোন গণ্ডগোল হয় নি। তবু কেন মিথ্যে অভিযোগ করা হল বুঝতে পারছি না।”

উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের বিধানসভা এলাকা নাটাবাড়ির মধ্যে কোচবিহার ১ নম্বর ব্লকের দেওয়ানহাট গ্রাম পঞ্চায়েত। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে থেকে ওই এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেসের মাদার-যুব গোষ্ঠীর কোন্দল শুরু হয়। একাধিকবার সংঘর্ষ, বাড়ি পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনাও ঘটে সেখানে। গ্রাম পঞ্চায়েত দখল নিতে পারলেও মাদার গোষ্ঠী সেখানে দীর্ঘদিন থেকে সাংগঠনিক শক্তি হারিয়ে দুর্বল হয়ে রয়েছে। কিন্তু তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কোচবিহার জেলার সাধারণ সম্পাদক নিশীথ প্রামাণিককে বহিষ্কারের পর থেকে ওই এলাকায় ফের মাদার গোষ্ঠী মাথাচার দেওয়ার চেষ্টা করে। বেশ কিছুদিন দলীয় কার্যালয়ে না গেলেও সম্প্রতি কয়েকজন নেতৃত্ব সেখানে যাতায়াত শুরু করে। তারপরেই গতকাল সন্ধ্যায় ওই ঘটনা বলে মনে করা হচ্ছে।

এছাড়াও চেক করুন

সূবর্নরেখা মহাবিদ্যালয়ে পালিত হল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস

স্টিং নিউজ সার্ভিস, ঝাড়গ্রাম:- একুশে ফেব্রুয়ারি জনগণের কাছে একটি গৌরবোজ্জ্বল দিন। এটি শহীদ দিবস ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published.