Breaking News
Home >> Breaking News >> ভাঙাচোরা বর্ধমান হাসপাতাল, দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ

ভাঙাচোরা বর্ধমান হাসপাতাল, দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, বর্ধমান: শুক্রবার বর্ধমান হাসপাতালের নিউ বিল্ডিং-এর সেমিনার রুমের ছাদের চাঙর খসে পড়ে আহত হন দুই জুনিয়র চিকিৎসক। ঘটনার পর জুনিয়র ডাক্তারদের অভিযোগ ছিল গোটা নিউ বিল্ডিংই বেহাল অবস্থায় রয়েছে। বারবার জানিয়েও কোন ফল হয়নি বলে অভিযোগ। এদিন হাসপাতালের নিউ বিল্ডিং ঘুরে দেখা গেল গোটা বিল্ডিংই রুগ্ন। একইসঙ্গে রুগ্ন হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সামনের হাউসস্টাফদের হোস্টেলের।

যদিও হাসপাতাল জানাচ্ছে খুব দ্রুত কাজ শুরু হবে। বৃহঃস্পতিবার বর্ধমান মেডিকেল কলেজের রাধারানী ওয়ার্ডের সামনে রয়েছে নিউ বিল্ডিং। প্রায় ৪০ বছর আগে এই তিনতলা বিল্ডিং তৈরি হয়েছিল। বর্তমানে এই বিল্ডিংয়েই রয়েছে মেডিসিন, চেস্ট, নাক কান গলা বিভাগ। রাধারানী ওয়ার্ডের কাজ চলার জন্য, এই বিল্ডিয়ের রাধারানীর দুটি ইউনিট এখানে সরিয়ে আনা হয়েছে। কিন্তু এই বিল্ডিং ঢোকার ঠিক মুখেই চোখে পড়বে প্রবেশদ্বারের উপরের ভাঙা অংশ। সিঁড়ির মাথার উপরের দিকে অংশও ভাঙা অবস্থায় রয়েছে। তিনতলায় মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানের ঘরের ছাদেও রয়েছে ফাটল। তিনতলায় লিফটের উপরে দিকের ছাদ থেকে জল ছুঁইয়ে পড়ে। ফলে যেকোন সময়ে ঘটে যেতে পারে মারাত্মক দুর্ঘটনা। হাসপাতালসুত্রে জানা গেছে, এই বিল্ডিংয়ের ছাদের হাল খুবই খারাপ। মাঝে মধ্যে একটু আধটু সংস্কার হলেও পাকাপাকিভাবে সংস্কার কখনই করা হয়নি।
হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সামনের হাউসস্টাফদের হোস্টেলের বাইরের দিকের দেওয়াল ভেঙ্গে পড়ছে। বাড়ির আনাচেকানাচে জন্মাচ্ছে আগাছা। বাইরে থেকে দেখলে কোন পোড়ো বাড়ি মনে হবে এই হোস্টেলকে। হোস্টেল প্রবেশের মূল গেটের পাশের দেওয়াল থেকে প্লাস্টার খসে পড়েছে। এখানেই ৫১টি ঘরে প্রায় ১৫০ জন ছাত্র বসবাস করে। যদিও এই হোস্টেলের ভীতরগুলিতে মারাত্মক ভাঙা অংশ বাঁ ফাটল কিছু চোখে পড়েনি। কিন্তু বাইরের যা দশা তাতে যেকোনদিন ফের মাথায় চাঙর ভেঙ্গে পড়ার মত ঘটনা ঘটতে পারে।

সমস্যা আছে তা মানছেন হাসপাতাল কর্তিপক্ষও। হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে, ২০১৪-১৫ সালে হোস্টেলের কাজ শুরু হয়েছিল। সেই সময় ৭০ লক্ষ টাকা পাওয়া যায়। কিন্তু ৩০% কাজ হয়েই তা বন্ধ যায়। ফের ৬৭ লক্ষ টাকা ব্যায়ে এই হোস্টেল সংস্কার করা হবে। নিউ বিল্ডিংয়ের বেহাল দশা নিয়ে হাসপাতালের ডেপুটি সুপার সাহা অমিতাভ সাহা জানান, এই বিল্ডিঙয়ে বার্ন ওয়ার্ড তৈরি হবে। এরজন্য ২.৫ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। ফলে গোটা নিউ বিল্ডিংটি নতুন করে সংস্কার কাজ শুরু হবে।

এছাড়াও চেক করুন

শীতের আগে ঝাড়গ্রামবাসীকে আনন্দ দিতে হাজির কোহিনুর সার্কাস

ঝাড়গ্রাম:- ঝাড়গ্রামে শুরু হলো কোহিনুর সার্কাস। আগামী একমাস দুপুর ১টা , বিকেল ৪টা ও সন্ধ্যা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.