Breaking News
Home >> Breaking News >> নদিয়ার তেহট্টে বেআইনি মদের দোকানে ভাঙচুর চালানো মহিলারা

নদিয়ার তেহট্টে বেআইনি মদের দোকানে ভাঙচুর চালানো মহিলারা

পার্থ দাস বৈরাগ্য, স্টিং নিউজ করেসপন্ডেন্ট, তেহট্ট, নদিয়া: নদিয়ার তেহট্ট থানার কড়ুইগাছি সর্দার পাড়ায় একটি বেআইনি মদের দোকানে ভাঙচুর চালালো উত্তেজিত মহিলারা। মহিলারা ওই মদের দোকানটি ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয়। এই ঘটনায় ফলে পাশের দুটি দোকানও পুড়ে

যায়। স্থানীয় মানুষ আগুন নিভিয়ে দেয় বে আইনি মদের ভাটি পুরে যাওয়ার পর। পরে খবর পেয়ে পুলিস ঘটনাস্থলে যায়। পুলিস ওই বে আইনি মদের দোকানদার অনন্ত দাস ও তাঁর ছেলে বাপন দাস কে থানায় আটক করে নিয়ে আসে। স্থানীয় সূত্রে
জানা গিয়েছে, বেশ কিছুদিন ধরে ওই মদের দোকানটি এলাকাতে চলছিল। তার পাশেই
অনুসারী শিল্পের মত ওখানে একটি চপের দোকান ও একটি মাংসের দোকান গড়ে উঠেছিল। ওই
গ্রামের মহিলারা বারবার ওই  দোকানদারকে মদ বিক্রি করতে নিষেধ করে। তাতে
অনন্ত বা ছেলে কেউ কর্ণপাত করে নি। তারা অবাধে মদ বিক্রি করে যায়। এই
ঘটনা পুলিস জানলে কয়েকদিন আগে পুলিস অনন্তকে গ্রেপ্তার করে । জামিন পেয়ে
এসে আবার সে ওই ব্যবসা শুরু করে। এদিন সকালে এলাকার মহিলারা দলবদ্ধ ভাবে
ওই দোকান ভাঙচুর করে ও আগুন ধরিয়ে দেয়। স্থানীয় মহিলা দুর্গা মল্লিক
বলেন, আমাদের বাড়ির পুরুষরা এই মদের ভাটি থেকে মদ খেয়ে বাড়িতে গিয়ে রোজ
মারধর ও অশান্তি করত। তারা যা আয় করত তা এই মদের পিছনে চলে যেত। আমরা
পাড়া থেকে ওই দোকানদারকে বারবার বলেছি এখানে মদ বিক্রি করো  না। তাও সে
শোনে নি। কদিন আগে পুলিস তাঁকে ধরেও নিয়ে যায়। আবার ফিরে এসে এই ব্যবসা
শুরু  করে। তাই এদিন আমরা গ্রামের মহিলারা মিলে এই দোকানে ভাঙচুর করে
আগুন ধরিয়ে দিয়। পুলিস ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি আয়ত্তে আনে ও মদের ভাটির
মালিক এবং তার ছেলেকে থানায় নিয়ে আসে।

এছাড়াও চেক করুন

শীতের আগে ঝাড়গ্রামবাসীকে আনন্দ দিতে হাজির কোহিনুর সার্কাস

ঝাড়গ্রাম:- ঝাড়গ্রামে শুরু হলো কোহিনুর সার্কাস। আগামী একমাস দুপুর ১টা , বিকেল ৪টা ও সন্ধ্যা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.